z

Rupali Bank’s profit jumps 29% in Jan-Mar

During the first quarter of 2024, its earnings per share was Tk0.49, which was Tk0.38 at the same time a year ago.

State owned Rupali Bank’s net profit jumped by 29% in the January-March of this year compared to the previous year, according to the bank’s financial statement disclosed today (1 June).

During the first quarter of 2024, its earnings per share was Tk0.49, which was Tk0.38 at the same time a year ago.

At the end of March, its net asset value per share stood at Tk36.07.

On Thursday, Rupali Bank shares closed 1.20% higher at Tk25.20 on the Dhaka Stock Exchange (DSE).

Earlier, in May, Rupali Bank was downgraded to the Z category in Dhaka bourse, as it failed to declare any dividends for two consecutive years.

The DSE downgraded the bank from its existing B category in line with the directive of the Bangladesh Securities and Exchange Commission issued on 15 February.

The bank decided not to pay any dividend to its shareholders for 2022 and 2023.

However, according to its financials, its consolidated earnings per share increased to Tk1.35 at the end of 31 December 2023, which was Tk0.61 in 2022.

In March, Rupali Bank received approval from the finance ministry to issue ordinary shares, against the share money deposits of Tk700 crore.

As per finance ministry officials, the issuance of ordinary shares priced at Tk15 each, comprising a Tk5 premium and Tk10 face value, has been approved.

The shares issuance is subject to approval of the Bangladesh Securities and Exchange Commission.

 

Source: The Business Standard

urop

শেয়ারবাজারের উন্নয়নে সহযোগিতার আশ্বাস ইউরোপীয় ইউনিয়নের

শেয়ারবাজারের উন্নয়নে সহযোগিতার আশ্বাস ইউরোপীয় ইউনিয়নের

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশে অবস্থানরত ইউরোপীয় ইউনিয়নের দুই সদস্যের প্রতিনিধি দল বাংলাদেশের শেয়ারবাজারের উন্নয়নে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে। বুধবার (২৯ মে) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. হাফিজ মুহম্মদ হাসান বাবু’র সঙ্গে বাংলাদেশে অবস্থানরত ইউরোপীয় ইউনিয়নের দুই সদস্যের প্রতিনিধিদল বৈঠক কালে এই আশ্বাস দেন।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, পরিসংখ্যান এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নের পাবলিক ফাইন্যান্স ম্যানেজমেন্টের প্রকল্প কর্মকর্তা সমষ্টিক অর্থনৈতিক বিশ্লেষণ মি. মার্গা পিটার্স ও ইনক্লুসিভ গভর্নেন্সের টিম লিডার ফাস্ট সেক্রেটারি মিস এনরিকো লরেনজন।

ডিএসই কার্যালয়ে এ বৈঠকের সময় তার সঙ্গে ছিলেন ডিএসইর পরিচালক মো. শহীদুল ইসলাম, ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) সাত্বিক আহমেদ, প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা খাইরুল বাসার আবু তাহের মোহাম্মদসহ ডিএসইর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।

বৈঠকে ডিএসইর চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. হাফিজ মুহম্মদ হাসান বাবু বলেন, বাংলাদেশের শেয়ারবাজার একটি উদীয়মান শেয়ারবাজার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্মার্ট বাংলাদেশের সাথে সঙ্গতি রেখে বর্তমান শেয়ারবাজারকে উন্নয়নের সাথে আরও বেশি সম্পৃক্ত করার বিষয়ে ভাবছেন।

তিনি বলেন, শেয়ারবাজারের মাধ্যমে দীর্ঘমেয়াদে অৰ্থায়ণ হয়। আর এর মাধ্যমে দেশের জিডিপির পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। প্রধানমন্ত্রীর এই উদ্যোগ বাস্তবায়নে বাংলাদেশের শেয়ারবাজারের উন্নয়নে তিনি ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে ডিএসইর সহযোগিতা বৃদ্ধি করার বিষয়ে আলোচনা করেন।

একই সঙ্গে তিনি পণ্য এবং প্রযুক্তির উন্নয়ন এবং বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্টকরণ ইত্যাদি বিষয়সমূহ নিয়েও আলোচনা করেন। প্রতিনিধিবৃন্দ বাংলাদেশের শেয়ারবাজারের উন্নয়নে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন।

পরে ডিএসই’র চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. হাফিজ মুহম্মদ হাসান বাবু প্রতিনিধিবৃন্দকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে এবং ‘রূপকল্প ২০৪১’ বাস্তবায়নে সরকারের সম্ভাব্য উন্নয়ন রূপরেখা বাস্তবায়ন করার তথ্য-বিশ্লেষণ এবং সচিত্র দিক নির্দেশনামূলক ‘ওয়াল্ড লিডার শেখ হাসিনা: দ্যা পাইওনিয়ার অফ গ্লোবাল বাংলাদেশ’ নামক নিজের লেখা একটি বই উপহার দেন।

সূত্রঃ শেয়ারনিউজ

ucbl-logo

UCB to invest Tk50cr as sponsor of new mutual fund

An official of the asset manager told The Business Standard that the target size of the upcoming fund would be Tk150 crore.

United Commercial Bank has decided to be the sponsor of an upcoming closed-end mutual fund to be managed by Capitec Asset Management.

As the sponsor of a growth fund to be listed publicly, the private sector lender will invest Tk50 crore, UCB announced in a regulatory disclosure on Tuesday, adding that its board of directors has already approved the decision.

A growth mutual fund focuses on investing in companies with high potential for faster growth, and capital gain-chasing investors tend to prefer such mutual funds over income funds, which invest in high-income generating stocks or bonds.

An official of the asset manager told The Business Standard that the target size of the upcoming fund would be Tk150 crore.

The fund will apply for regulatory flexibility to enable the asset manager to better switch between suitable asset classes – stocks and bonds – to maximise returns for investors, added the official.

For instance, when fixed-income securities like corporate or treasury bonds offer lucrative yields, stocks as an asset class usually face selling pressure. Conversely, when interest rates go down, smart investors tend to switch to stocks over fixed-income assets.

Stiff regulations requiring a minimum exposure to stocks often force mutual funds to absorb capital erosion when the stock market goes through a bearish cycle.

Capitec currently manages four mutual funds – three open-ended mutual funds and one closed-ended fund.

Source: The Business Standard

national_is

National Life Insurance declares 38% cash dividends for 2023

The life insurer had announced the same dividends a year earlier

National Life Insurance has announced a 38% cash dividend to its shareholders for the calendar year 2023. 

At a meeting on 23 May, its board of directors made a recommendation for the dividends.

But it will require shareholders’ approval at the next annual general meeting (AGM), slated to be held on 30 June.

The life insurer had announced the same dividends a year earlier.

On Thursday, National Life Insurance’s shares price fell by 2.93% or Tk3.4 to Tk112.6 each on the Dhaka Stock Exchange (DSE).

The record date has been fixed for 12 June, according to the price sensitive information (PSI) published on its website.

In 1995, the company got listed on the DSE. Now, its shares are being traded under the A category on the country’s two bourses.

The paid-up capital of National Life Insurance is Tk108.52 crore, which is split into 10.85 crore general shares.

The company’s market capitalization is Tk1,258 crore.

As of April 2023, sponsor-directors held 55.88% of the company’s total shares, institutional investors owned 19.52% stake, foreign investors had 0.18% and general shareholders held 29.30%, according to the DSE.

Source: The Business Standard

hafiz_muhammad-dse

DSE chairman urges NBR not to impose new tax on capital gains

The DSE has already submitted several tax-related proposals to the NBR for inclusion in the budget for fiscal year 2024–25 to further develop and accelerate investment in the capital market

The Dhaka Stock Exchange (DSE) Chairman, Professor Dr Hafiz Md Hasan Babu, has urged the National Board of Revenue (NBR) to refrain from imposing a capital gains tax on individual investors. 

In a recent press release, he said various media outlets have reported that the NBR is planning to impose a tax on capital gains for individual investors. This news has instilled fear and panic among investors, contributing to the market’s continuous decline.

During this transition period in the capital market, the DSE Chairman has requested the NBR Chairman to consider the interests of investors and not impose a tax on capital gains, reads the press release.

According to market insiders, the NBR’s move to impose a 15% tax on individual investors’ capital gains over Tk40 lakh from the stock market recently triggered a fresh round of sell-offs.

The market stopped falling earlier this month when the Bangladesh Securities and Exchange Commission (BSEC) Chairman, Professor Shibli Rubayat Ul Islam, informed journalists that NBR officials had assured him there would be no imposition of such a tax right now.

However, the market dived deeper following news updates last week that the NBR had initially sought and obtained Prime Minister Sheikh Hasina’s approval to proceed with the capital gain tax, alongside many other tax elements of the upcoming national budget.

The market capitalisation at the Dhaka Stock Exchange (DSE) has plummeted by around Tk20,000 crore over the past six consecutive days.

During the sessions, DSEX, the benchmark index of the DSE, lost 303 points to settle at 5,393, lowest since 19 April 2021.

 

Source: The Business Standard

p7_info_digicon-technology_0

Digicon Technologies seeks to go public for expansion

The company has applied to the Bangladesh Securities and Exchange Commission (BSEC) to issue three crore ordinary shares at a face value of Tk10

TBS Illustration

TBS Illustration

Digicon Technologies PLC, a leading IT-enabled service provider, seeks to raise Tk30 crore through an initial public offering (IPO) from the capital market to fuel its expansion endeavours.

The company has applied to the Bangladesh Securities and Exchange Commission (BSEC) to issue three crore ordinary shares at a face value of Tk10.

As per its IPO utilisation plan, the firm intends to allocate Tk5.5 crore to repay a term loan, Tk4.5 crore for working capital, Tk18.55 crore for capital expenditures, and Tk1.45 crore for IPO expenses.

Digicon Technologies is one of the largest business process outsourcing (BPO) companies in Bangladesh. Its principal business activities include ITES services, IT training, IT consultancy, IT solutions, BPO and call centre services, HR management and payroll services, digital services, marketing of software products, and providing maintenance and managed services.

Wahidur Rahman Sharif, managing director of Digicon Technologies, told The Business Standard that under the government’s Smart Bangladesh vision, numerous IT-based development projects will be created within the country.

In the future, these projects will be automated and implemented through IT companies, creating new opportunities for the sector, he added.

“Additionally, foreign companies now prefer to obtain services at a lower cost, as these services are quite expensive in their own countries. They are prioritising countries like Bangladesh, leading to new opportunities in outsourcing. To capitalise on these prospects, we aim to make our companies more competitive,” he said.

“Furthermore, we plan to increase compliance by listing our company on the stock market, which will make it easier to meet customers’ requirements. The anticipated successful business expansion will further strengthen our company’s foundation in this sector,” he added.

IT-enabled services and project income are the major revenue sources for the company. In the first six months of the current fiscal year, the company registered a revenue of Tk22.23 crore, an increase from Tk17.80 crore in the equivalent period the previous year.

Of this revenue, Tk14.20 crore came from IT-enabled services and Tk8.03 crore from project income services.

Its profit after tax stood at Tk3.16 crore, a 6% increase from Tk2.97 crore in the corresponding period of the previous year.

Its earnings per share were Tk1.15, compared to Tk1.08 a year ago. Its net asset value per share stood at Tk21.16 at the end of December 2023.

In FY23, the company made revenue of Tk45.15 crore, up from Tk41.78 crore in FY22. During the year, its profit after tax was Tk4.07 crore, a 195% increase from Tk1.38 crore in the previous fiscal year.

Its authorised capital is Tk100 crore, while its paid-up capital stood at Tk27.50 crore.

The company has invested in TechCity Bangladesh Limited, incorporated in October 2017, with a paid-up capital of Tk50 lakh. Digicon Technologies PLC owns 45% of the company. Digicon Technologies PLC started its business in December 2010 and is situated at Sheikh Hasina Software Technology Park, Jashore.

The Bangladesh Association of Contact Center and Outsourcing wrote on its website that the ICT sector in Bangladesh is poised for continued expansion.

According to the International Telecommunication Union (ITU), the number of internet users nearly tripled from 6.5% of the population in 2013 to 18.02% in 2017. Bangladesh ranked 147 out of 176 on the ITU’s ICT Development Index 2017, an occasional report that captures the level of ICT development.

 

Source: The Business Standard

Untitled

আর্থিক খাতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বেড়েছে ১২ কোম্পানির

আর্থিক খাতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বেড়েছে ১২ কোম্পানির

নিজস্ব প্রতিবেদক : শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত আর্থিক খাতের ২৩টি কোম্পানির মধ্যে এপ্রিল মাসের বিনিয়োগ তথ্য হালনাগাদ প্রকাশ করেছে ২২টি কোম্পানি। প্রকাশিত হালনাগাদ তথ্য অনুযায়ী, এপ্রিল মাসে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বেড়েছে ১২টি কোম্পানির। একই সময়ে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ কমেছে ৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩টি কোম্পানির। ডিএসই সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

প্রাতিষ্ঠানিক বৃদ্ধি পাওয়া কোম্পানিগুলো হলো- বিডি ফাইন্যান্স, ডিবিএইচ ফাইন্যান্স, ফারইস্ট ফাইন্যান্স, ফাস ফাইন্যান্স, ফার্স্ট ফাইন্যান্স, আইডিএলসি ফাইন্যান্স, মাইডাস ফাইন্যান্স, ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্স, ফিনিক্স ফাইন্যান্স, প্রিমিয়ার লিজিং, ইউনিয়ন ক্যাপিটাল এবং ইউনাইটেড ফাইন্যান্স।

বিডি ফাইন্যান্স

মার্চ মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ১৫.০৪ শতাংশ, যা এপ্রিল মাসে ০.০২ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫.০৬ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৫৩.৭৬ শতাংশ থেকে ০.০২ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৫৩.৭৪ শতাংশে। ডিবিএইচ ফাইন্যান্স : মার্চ মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ২৩.৭২ শতাংশ, যা এপ্রিল মাসে ০.১৬ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৩.৮৮ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ১৩.৫৭ শতাংশ থেকে ০.১৫ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১৩.৪২ শতাংশে। আলোচ্য সময়ে বিদেশি বিনিয়োগ ১১.৩৯ শতাংশ থেকে ০.০১ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১১.৩৮ শতাংশে।

ফারইস্ট ফাইন্যান্স

মার্চ মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ১৫.৫৫ শতাংশ, যা এপ্রিল মাসে ০.০৫ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫.৬০ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৪৪.৭১ শতাংশ থেকে ০.০৫ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৪৪.৬৬ শতাংশে।

ফাস ফাইন্যান্স

মার্চ মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৮.৫৫ শতাংশ, যা এপ্রিল মাসে ০.১৩ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮.৬৮ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৭৮.২৫ শতাংশ থেকে ০.১৩ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৭৮.১২ শতাংশে।

ফার্স্ট ফাইন্যান্স

মার্চ মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ২০.৭৩ শতাংশ, যা এপ্রিল মাসে ০.০৫ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২০.৭৮ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৩৭.৯৬ শতাংশ থেকে ০.০৫ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৩৭.৯১ শতাংশে।

আইডিএলসি ফাইন্যান্স

মার্চ মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ২৮.০৬ শতাংশ, যা এপ্রিল মাসে ০.৩২ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৮.৩৮ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ১৪.১২ শতাংশ থেকে ০.৩২ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১৩.৮০ শতাংশে।

মাইডাস ফাইন্যান্স

মার্চ মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ২৬.২৪ শতাংশ, যা এপ্রিল মাসে ০.০১ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৬.২৫ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৩২.৬৭ শতাংশ থেকে ০.০২ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৩২.৬৫ শতাংশে। আলোচ্য সময়ে উদ্যোক্ত পরিচালকদের বিনিয়োগ ৪০.৬৭ শতাংশ থেকে ০.০১ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪০.৬৮ শতাংশে।

ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্স

মার্চ মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ১০.৭৭ শতাংশ, যা এপ্রিল মাসে ০.০৯ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০.৮৬ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ২৯.৩২ শতাংশ থেকে ০.০৯ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ২৯.২৩ শতাংশে।

ফিনিক্স ফাইন্যান্স

মার্চ মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ২২.৭৩ শতাংশ, যা এপ্রিল মাসে ০.১৩ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২২.৮৬ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৪৮.১০ শতাংশ থেকে ০.১৩ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৪৭.৯৭ শতাংশে।

প্রিমিয়ার লিজিং

মার্চ মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ২৩.৩৮ শতাংশ, যা এপ্রিল মাসে ০.০১ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৩.৩৯ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৫০.৫৩ শতাংশ থেকে ০.০১ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৫০.৫২ শতাংশে।

ইউনিয়ন ক্যাপিটাল

মার্চ মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ১৮.৭৪ শতাংশ, যা এপ্রিল মাসে ০.৩২ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৯.০৬ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৪৮.২৬ শতাংশ থেকে ০.৩২ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৪৭.৯৪ শতাংশে।

ইউনাইটেড ফাইন্যান্স

মার্চ মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ১৬.৬৩ শতাংশ, যা এপ্রিল মাসে ০.১৬ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৬.৭৯ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ২৮.৯৫ শতাংশ থেকে ০.১৬ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ২৮.৭৯ শতাংশে।

সূত্রঃ শেয়ারনিউজ

unilever_0

Unilever Consumer Care declares 300% cash dividends

At the 51st annual general meeting on Tuesday, its shareholders approved the dividends apart from directors’ report, auditor’s report, and audited financial statement for the year

Unilever Consumer Care has announced a 300% cash dividend on ordinary shares for the calendar year 2023 ended on 31 December.   

At the 51st annual general meeting on Tuesday, its shareholders approved the dividends apart from directors’ report, auditor’s report, and audited financial statement for the year, according to a release.

“In 2023, as a global business, our company encountered significant challenges stemming from geo-political crises, leading to a decline in gross profit,” Masud Khan, the company’s chairman, told the AGM.

“However, despite these adverse circumstances, we demonstrated resilience by increasing our net profit margin by 6.5% in 2023 compared to 2022,” he added.

The AGM was held on digital platform in line with the Bangladesh Securities and Exchange Commission’s directives.

The company’s other directors, Mohammad Zaved Akhtar, Zinnia Tanzina Huq, SOM Rashedul Quayum, Md Abul Hossain, and Reazul Haque Chowdhury, and Company Secretary, Md Naharul Islam Molla, also joined it.

Unilever Consumer Care Limited is one of the leading fast-moving consumer goods companies and has been operating in Bangladesh since 1974.

Throughout its remarkable journey of over four decades in this country, UCL stands strongly and maintains a leading position in the Health Food Drink Category of Bangladesh.

UCL’s portfolio includes international brands Horlicks, Maltova, Boost and GlucoMax D.

 

Source: The Business Standard

Untitled

বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে যেকোন পলিসি তৈরি করতে হবে: ডিএসই চেয়ারম্যান

বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে যেকোন পলিসি তৈরি করতে হবে: ডিএসই চেয়ারম্যান

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. হাফিজ মুহম্মদ হাসান বাবু বলেছেন, বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ সংরক্ষণ করতে যেকোন পলিসি তৈরি করতে হবে। তিনি বলেন, স্বার্থ সংরক্ষণ মানে এই নয় যে, মার্কেটকে উন্মুক্ত করে দেয়া। এটা হলো মার্কেটকে সিকিউর করা। আবার সিকিউর করতে গিয়ে যেন ভালো বিনিয়োগকারীরা নিরুৎসাহিত না হয়, সে বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে।

আজ সোমবার (১৩ মে) নিকুঞ্জে ডিএসইর নিজস্ব কার্যালয়ে সিইও ফোরামের সঙ্গে আয়োজিত এক বৈঠকে তিনি এই কথা বলেন। সিইও ফোরামের প্রেসিডেন্ট মোঃ ছায়েদুর রহমান ও সংগঠনটির ৩০ সদস্যের প্রতিনিধিদলের পাশাপাশি ডিএসই’র প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা সাত্বিক আহমেদ শাহ, প্রধান রেগুলেটরী কর্মকর্তা খায়রুল বাসার আবু তাহের মোহাম্মদসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ডিএসই চেয়ারম্যান বলেন, বহুজাতিক কোম্পানি, ভালো ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানি, আরএমজি সেক্টরের গ্রীন ফ্যাক্টরি কোম্পানিগুলো ও ইন্স্যুরেন্স খাতসহ অনেক ভালো খাত রয়েছে, যাদের বাজার আনার জন্য সুযোগ রয়েছে। শুধু ভালো কোম্পানিকে বাজারে আনতে একটি রিসার্স সেল তৈরি করে কাজ করতে হবে।

ড. হাসান বাবু বলেন, শেয়ারবাজার ক্রান্তিকাল পেরিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। সেজন্য বাজার সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে মিলে একটি পরিকল্পনা তৈরি করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শেয়ারবাজারের মাধ্যমে অর্থনীতিকে গতিশীল করতে সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো তালিকাভুক্তির জন্য নির্দেশনা প্রদান করেছেন৷ প্রধানমন্ত্রীর এই দূরদর্শী নির্দেশনা শেয়ারবাজারের জন্য অত্যন্ত ইতিবাচক ও সময়োপযোগী৷ প্রধানমন্ত্রীর এই পদক্ষেপ স্টক এক্সচেঞ্জের দীর্ঘদিনের লক্ষ্য ছিল৷ প্রধানমন্ত্রী শেয়ারবাজারের প্রতি অত্যন্ত আন্তরিক বিধায় তার দীর্ঘদিনের পরিকল্পনার অংশ হিসেবে সরকারি লাভজনক কোম্পানিগুলোকে তালিকাভুক্ত করার জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করতে বলেছেন।

ডিএসই চেয়ারম্যান জানান, প্রধানমন্ত্রী যে নির্দেশনা দিয়েছেন সে বিষয়ে আমরা সম্মিলিতভাবে কিভাবে কাজে লাগাতে পারি সে বিষয়ে আজকে সিইও ফোরামের সাথে বৈঠক। পর্যায়ক্রমে আমরা মার্কেট ব্যাংকার্স এসোসিয়েশন, ডিএসই ব্রোকার্স এসোসিয়েশনসহ অন্যান্য কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনায় বসবো। যা শেয়ারবাজারের টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করবে৷ এই নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে হলে আমাদের যার যার অবস্থান থেকে কাজ করতে হবে৷ আমাদের সকলের উদ্দেশ্য হলো শেয়ারবাজারকে একটি ভালো অবস্থানে নিয়ে যাওয়া। আমরা সকলে এক সাথে কাজ করবো। যা বাংলাদেশের শেয়ারবাজারের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

বাজেটে ট্যাক্স প্রসংগে তিনি বলেন, শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ও অ-তালিকাভুক্ত কোম্পানির মধ্যে অবশ্যই ট্যাক্স-এর একটা উল্লেখযোগ্য পার্থক্য থাকতে হবে। এই বিষয়ে আমরা ইতোমধ্যে এনবিআরকে চিঠি দিয়েছি। এনবিআর এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের সাথে আলোচনার মাধ্যমে এ বিষয় এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি, তাহলে আমরা কিছুটা সমাধান পাব বলে আশা করি। আর একটা বিষয় হলো দ্বৈতকর। দ্বৈতকর একজন বিনিয়োগকারীকে শেয়ারবাজারে আসতে নিরুৎসাহিত করে। আর একটি বিষয় হলো পলিসি সম্পর্কিত বিষয়। তাই রেগুলেটরের সাথে আমরা এই বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো।

সিইও ফোরামের প্রেসিডেন্টসহ অন্যান্য প্রতিনিধিবৃন্দরা বলেন, বাজারের উন্নয়নে এর আগে আমরা অনেক উদ্যোগ নিয়েছি। কিন্তু আমরা আমাদের লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারিনি। আমার মনে হয় সবার কাছে আমরা পৌঁছাতে পারিনি আমাদের বিষয়গুলো। অনেক আগে থেকে আমরা তালিকাভুক্ত ও অতালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর মধ্যে করের ব্যাবধান বৃদ্ধি করতে বলে আসছি। কিন্তু এর কোনো প্রতিফলন আমরা দেখতে পায়নি। যদি করের ব্যবধান বাড়ানো না হয়, তাহলে আমরা আমাদের কাঙ্ক্ষিত কোম্পানিগুলোকে বাজারে আনতে পারব না।

প্রতিনিধিবৃন্দ বলেন, এছাড়া দীর্ঘদিন ধরে আমাদের বিনিয়োগকারীরা শেয়ার বাজারের ডিভিডেন্ডের উপর আকৃষ্ট হচ্ছেন না এর অন্যতম কারণ হল দ্বৈত কর। ডিভিডেন্ডে একবার কর্পোরেট ট্যাক্স দেওয়া হচ্ছে এরপর আবার বিনিয়োগকারীদেরকে পুনরায় কর দিতে হয়। বাংলাদেশে ব্যাংক ঋণ অত্যন্ত সহজলভ্য হবার কারণে ভালো ভালো কোম্পানিগুলো শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হচ্ছে না। এছাড়া আমাদের বাজার ইক্যুইটি কেন্দ্রিক হওয়ায় এখানে উত্থান-পতন বেশি দেখা যায়। তাই বাজারে কিভাবে পণ্য বৈচিত্র্যতা বাড়ানো যায় সে বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।

সূত্রঃ শেয়ারনিউজ

renata_logo

Renata ships drug registered in Australia

Local drug maker Renata has shipped initial consignment of its first registered product in Australia.

In a statement on Sunday, the company said the shipment of Levonorgestrel known by its brand name Novella-1 in a regulated market like Australia is a testament to their products’ global standard.

Levonorgestrel is approved by the World Health Organisation, and other regulatory bodies such as the US FDA and the Therapeutic

Goods Administration (TGA) as a first line oral emergency contraceptive pill.

The distribution and commercialisation of Levonorgestrel will be done through Renata’s partner, Nova Pharmaceuticals Australasia Pty Ltd, a supplier of pharmaceutical products to pharmacies and supermarkets in Australia.

The commercial launch of Levonorgestrel, with two other products in queue for registration in Australia, would further bolster Renata’s growing market access worldwide, the company also said in the statement.

 

Source: The Business Standard