Dividend2

ডিভিডেন্ড বেড়েছে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের ৪ কোম্পানির

ডিভিডেন্ড বেড়েছে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের ৪ কোম্পানির

নিজস্ব প্রতিবেদক: শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের ২৩টি কোম্পানির মধ্যে এই পর্যন্ত ২২টি কোম্পানি ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এরমধ্যে ৪টি কোম্পানির ডিভিডেন্ড আগের বছরের তুলনায় বেড়েছে, ১০টি কমেছে এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫টির। আর ‘নো ডিভিডেন্ড’ ঘোষণা করেছে ৩টির এবং ১টি কোম্পানি এখনো ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেনি। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

ডিভিডেন্ড বৃদ্ধির চার কোম্পানি হলো- ইস্টার্ন লুব্রিকেন্টস, যমুনা অয়েল, মেঘনা পেট্রোলিয়াম এবং পদ্মা অয়েল কোম্পানি লিমিটেড।

ইস্টার্ন লুব্রিকেন্টস

৩০ জুন, ২০২৩ অর্থবছরের জন্য কোম্পানিটি ৬০ শতাংশ ক্যাশ এবং ১০ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড দিয়েছে। আগের বছর ৩০ জুন, ২০২২ অর্থবছরে কোম্পানিটি ৪০ শতাংশ ক্যাশ এবং ১০ শতাংশ বোনাস ডিভেডেন্ড দিয়েছিল।

সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২১ টাকা ৭৮ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ৯ টাকা ৫০ পয়সা।

সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নীট সম্পদ মূল্য দাঁড়িয়েছে ১৮৮ টাকা ৬৩ পয়সায়। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ১৮৭ টাকা ৫২ পয়সা।

যমুনা অয়েল

৩০ জুন, ২০২৩ অর্থবছরের জন্য কোম্পানিটি ১৩০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড দিয়েছে। আগের বছর ৩০ জুন, ২০২২ অর্থবছরে কোম্পানিটি ১২০ শতাংশ ক্যাশ ডিভেডেন্ড দিয়েছিল।

সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩০ টাকা ৮৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ১৬ টাকা ৮৭ পয়সা।

সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নীট সম্পদ মূল্য দাঁড়িয়েছে ২০৫ টাকা ৪৯ পয়সায়। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ১৮৯ টাকা।

মেঘনা পেট্রোলিয়াম

৩০ জুন, ২০২৩ অর্থবছরের জন্য কোম্পানিটি ১৬০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড দিয়েছে। আগের বছর ৩০ জুন, ২০২২ অর্থবছরে কোম্পানিটি ১৫০ শতাংশ ক্যাশ ডিভেডেন্ড দিয়েছিল।

সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪০ টাকা ৮৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ২৯ টাকা ২৫ পয়সা।

সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নীট সম্পদ মূল্য দাঁড়িয়েছে ১৯৮ টাকা ৯৪ পয়সায়। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ১৭৪ টাকা ১৫ পয়সা।

পদ্মা অয়েল

৩০ জুন, ২০২৩ অর্থবছরের জন্য কোম্পানিটি ১৩৫ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড দিয়েছে। আগের বছর ৩০ জুন, ২০২২ অর্থবছরে কোম্পানিটি ১২৫ শতাংশ ক্যাশ ডিভেডেন্ড দিয়েছিল।

সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩৫ টাকা ৫৮ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ২৪ টাকা ৪৭ পয়সা।

সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নীট সম্পদ মূল্য দাঁড়িয়েছে ২০৩ টাকা ৪৬ পয়সায়। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ১৮০ টাকা ৩৮ পয়সা।

সূত্রঃ শেয়ারনিউজ

Tags: No tags

Comments are closed.